• banlag
  • newspaper
  • epaper

ঢাকা , মঙ্গলবার, ০২ জুন ২০২০

 

ঊষ্ণ ও আর্দ্র অঞ্চলে করোনার প্রকোপ হ্রাস পেতে পারে

নিউজ আপলোড : ঢাকা , সোমবার, ৩০ মার্চ ২০২০

সংবাদ :
  • রাকিব উদ্দিন
image

আবহাওয়ার উষ্ণতায় দুর্বল হচ্ছে প্রাণঘাতী করোনাভাইরাসের প্রার্দুভাব ও সংক্রমণ। উষ্ণ আর্দ্র আবহাওয়া নভেল করোনাভাইরাস সংক্রমণের রাশ টেনে ধরতে পারে বলে মনে করছেন ম্যাসাচুসেটস ইনস্টিটিউট অব টেকনোলজির (এমআইটি) গবেষক ও বিজ্ঞানী। সংস্থাটির একদল বিজ্ঞানী ও বিশেষজ্ঞের মতে, এশিয়ার যে দেশগুলোয় বর্ষা মৌসুম রয়েছে, সেসব দেশে এই ভাইরাস হয়তো কিছুটা কম ছড়াতে পারে। বিজ্ঞানীরা মনে করেন, আবহাওয়াজনিত পার্থকের কারণেই চীন, যুক্তরাষ্ট্র ও ইউরোপের চেয়ে দক্ষিণ-পূর্ব এশিয়ায় প্রাণঘাতী করোনাভাইরাসের প্রাদুর্ভাব অনেকটাই কম। উষ্ণ আবহাওয়ার দেশ ইরানেও করোনায় আক্রান্ত ও মৃত্যুর হার কমে আসছে। সম্প্রতি দেশটির কয়েকটি অঞ্চলে বন্যা শুরু হয়েছে, আবহাওয়ার উষ্ণতাও বাড়ছে। ৩০ মার্চ সোমাবর ইরানে তিন হাজার ১৮৬ জন নতুন করে আক্রান্ত হলেও মৃত্যুর সংখ্যা কমেছে, সোমাবর নাগাদ ১১৭ জন মারা গেছে। এর আগে ২৯ মার্চ রোববার ইরানে মৃত্যু হয় ১২৩ জনের, ২৮ মার্চ মৃত্যু হয় ১৩৯ জনের এবং ২৭ মার্চ মৃত্যু হয় আগামী দিনগুলোতে দক্ষিণ-পূর্ব এশিয়ার দেশ ও অঞ্চলগুলোতে করোনাভাইরাস সংক্রমণের ঝুঁকিও কমতে পারে বলে মনে করছেন বিজ্ঞানী ও বিশেষজ্ঞ চিকিৎসকরা। চীনের আশপাশের দেশগুলোতে করোনাভাইরাসের বিস্তৃতি অনেকটাই নিয়ন্ত্রণে রয়েছে। ইউরোপ ও আমেরিকাকে ঘায়েল করে ফেলেছে নভেল করোনাভাইরাস। চীনের উহান প্রদেশ প্রাণঘাতী করোনাভাইরাসের উৎপত্তিস্থল হলেও পরবর্তীতে এর কেন্দ্রস্থল বা হটস্পট স্থানান্তরিত হয় ইউরোপের দেশ ইতালি, স্পেন, ফান্স ও জার্মানি এমনকি কানাডায়ও ভয়ঙ্কর প্রাদুর্ভাব ঘটেছে করোনার। বর্তমানে এর হটস্পট হলো যুক্তরাষ্ট্র, করোনায় দেশটির নিউইর্য়ক অঙ্গরাজ্য বর্তমানে প্রায় বিপর্যস্ত। যুক্তরাষ্ট্রে করোনা আক্রান্তের সংখ্যা লাফিয়ে লাফিয়ে বাড়ছে।

যুক্তরাষ্ট্রের গবেষণা সংস্থার সর্বশেষ প্রতিবেদনে বলা হয়েছে, উষ্ণ আর্দ্র আবহাওয়া নভেল করোনাভাইরাস সংক্রমণের রাশ টেনে ধরতে পারে। এশিয়ার যে দেশগুলোয় বর্ষা মৌসুম রয়েছে, সেসব দেশে এই ভাইরাস হয়তো কিছুটা কম ছড়াতে পারে।

যুক্তরাষ্ট্রের ম্যাসাচুসেটস ইনস্টিটিউট অব টেকনোলজির (এমআইটি) গবেষক কাশিম বুখারিসহ বেশ কয়েকজন খ্যাতিমান বিজ্ঞানী বিশ্বের বিভিন্ন অঞ্চলে নভেল করোনাভাইরাসে সৃষ্ট কোভিড-১৯ সংক্রমণের তথ্য সংগ্রহ এবং আবহাওয়ার দুটি মানদ- তাপমাত্রা ও আর্দ্রতারভিত্তিতে পরিস্থিতি মূল্যায়ন করেছেন।

গবেষণাপত্রে দেখা গেছে, গত ২২ মার্চ পর্যন্ত বিশ্বের যে যে অঞ্চলে সার্স-কোভ-২ ছড়িয়েছে, সেসব অঞ্চলের তাপমাত্রা ছিল ৩ থেকে ১৭ ডিগ্রি সেলসিয়াস পর্যন্ত। ওই অঞ্চলে প্রতি ঘনমিটারে ওই আবহাওয়ায় আর্দ্রতা ছিল ৪ থেকে ৯ গ্রাম। আক্রান্ত দেশগুলোর গড় তাপমাত্রা ১৮ ডিগ্রি সেলসিয়াস ছিল বলে এমআইটির বিজ্ঞানীরা বলছেন।

এই বিশ্লেষণের ভিত্তিতে বিজ্ঞানীরা ধারণা করছেন, এশিয়ার যে দেশগুলোয় বর্ষা মৌসুম আছে, সেসব দেশে করোনাভাইরাসের সংক্রমণ হয়তো কম হবে। কারণ এই অঞ্চলের প্রতি ঘনমিটারে আর্দ্রতার পরিমাণ ১০ গ্রাম পর্যন্ত।

গবেষণা প্রতিবেদনে আরও বলা হয়েছে, মার্কিন যুক্তরাষ্ট্রের ভেতরেও উত্তর-দক্ষিণে ব্যাপক ফারাক আছে। উত্তরের দিকের রাজ্যগুলোর তাপমাত্রা কম এবং সেখানে সংক্রমণের হার অপেক্ষাকৃত উষ্ণ দক্ষিণাঞ্চলীয় রাজ্যগুলোর তুলনায় বেশি। টেক্সাস, নিউ মেক্সিকো ও অ্যারিজোনা অঙ্গরাজ্যে সংক্রমণের হার নিউইয়র্কের তুলনায় কম। এমনকি যুক্তরাষ্ট্রে সবচেয়ে বড় জলবায়ু অঞ্চল ক্যালিফোর্নিয়া অঙ্গরাজ্যেও দক্ষিণের তুলনায় উত্তরে করোনায় আক্রান্ত প্রায় দ্বিগুণ।

চীন ও ইরানসহ যুক্তরাষ্ট্র ও ইউরোপে আক্রান্ত ও প্রাণহানির চিত্র :

আন্তজার্তিক সংস্থার সর্বশেষ হিসেবে করোনাভাইরাসের সংক্রমণ ছড়িয়ে পড়েছে বিশ্বের ১৯৯টি দেশ ও অঞ্চলে। সোমাবর দুপুর নাগাদ সারাবিশে^ করোনাভাইরাসে আক্রান্তের সংখ্যা ৭ লাখ ৩৮ হাজার ২৩৩ জন। আর মৃত্যু হয়েছে ৩৫ হাজার ৪ জনের। সবচেয়ে বেশি আক্রান্ত হয়েছে যুক্তরাষ্ট্রে এক লাখ ৪২ হাজার ৭৯৩ জন এবং দেশটিতে মারা গেছে দুই হাজার ৪৯০ জন। আর ইতালিতে আক্রান্ত হয়েছে ৯৭ হাজার ৬৮৯ জন এবং মৃত্যু হয়েছে ১০ হাজার ৭৭৯ জনের, স্পেনে আক্রান্ত হয়েছে ৮৫ হাজার ১৯৫ জন এবং মৃত্যু হয়েছে ৭ হাজার ৩৪০ জনের, চীনে আক্রান্ত হয়েছে ৮১ হাজার ৪৭০ জন এবং মৃত্যু হয়েছে ৩ হাজার ৩০৪ জনের, জামার্নিতে আক্রান্ত হয়েছে ৬৩ হাজার ৭৯ জন এবং মৃত্যু হয়েছে ৫৪৫ জনের, ইরানে আক্রান্ত হয়েছে ৪১ হাজার ৪৯৫ জন এবং মৃত্যু হয়েছে ২ হাজার ৭৫৭ জনের, ফ্রান্সে আক্রান্ত হয়েছে ৪০ হাজার ১৭৪ জন এবং মৃত্যু হয়েছে ২ হাজার ৬০৬ জনের, যুক্তরাজ্যে আক্রান্ত হয়েছে ১৯ হাজার ৫২২ জন এবং মৃত্যু হয়েছে ১ হাজার ২২৮ জনের।

এছাড়াও সুইজারল্যান্ডে করোনাভাইরাসে আক্রান্ত হয়েছে ১৫ হাজার ৪৭৫ জন এবং মৃত্যু হয়েছে ৩২৭ জনের, বেলজিয়ামে আক্রান্ত হয়েছে ১১ হাজার ৮৯৯ জন এবং মৃত্যু হয়েছে ৫১৩ জনের, নেদারল্যান্ডসে আক্রান্ত হয়েছে ১১ হাজার ৭৫০ জন এবং মৃত্যু হয়েছে ৮৬৪ জনের, দক্ষিণ কোরিয়ায় আক্রান্ত হয়েছে ৯ হাজার ৬৬১ জন এবং মৃত্যু হয়েছে ১৫৮ জনের, তুরস্কে আক্রান্ত হয়েছে ৯ হাজার ২১৭ জন এবং মৃত্যু হয়েছে ১৩১ জনের।

দক্ষিণ-পূর্ব এশিয়ার সর্বশেষ করোনা পরিস্থিতি :

এদিকে জনসংখ্যার নিরিখে বিশে^র দ্বিতীয় বৃহৎ দেশ ভারত ছাড়া দক্ষিণ-পূর্ব এশিয়ার কোন দেশেই করোনা আক্রান্তের সংখ্যা হাজারে পৌঁছেনি। বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থার তালিকাভুক্ত দক্ষিণ-পূর্ব এশিয়ার ১১টি দেশের আটটিতে কোভিড-১৯ শনাক্ত হয়েছে। সোমাবর নাগাদ বাংলাদেশে (সরকারি হিসেব) করোনাভাইরাসে আক্রান্ত হয় ৪৯ জন এবং মৃত্যু হয় ৫ জনের। আর সোমাবর পর্যন্ত ভারতে করোনা রোগী শনাক্ত হয় ১ হাজার ৫২ জন এবং মৃত্যু হয় ২৮ জনের; থাইল্যান্ডে ১ হাজার ৫২৪ জন করোনা রোগী শনাক্ত এবং মৃত্যু ৯ জনের, ইন্দোনেশিয়ায় শনাক্ত ১ হাজার ৪১৪ জন করোনা আক্রান্ত শনাক্ত এবং মৃত্যুবরণ করেছে ১২২ জন। শ্রীলঙ্কায় আক্রান্ত ১২২ জন এবং মৃত্যু ১ জনের, নেপালে আক্রান্ত ৫ জন এবং ভুটানে করোনা আক্রান্তের সংখ্যা মাত্র ৪ জন।

বিজ্ঞানী ও স্বাস্থ্য বিশেষজ্ঞরা বলেছেন, করোনাভাইরাসের প্রধান লক্ষনগুলোর মধ্যে হাঁচি, শ্বাসকষ্ট, কাশি ও জ্বর অন্যতম। শীত প্রধান ও ঠাণ্ডা আবহাওয়ার দেশ ও অঞ্চলেই এ ধরনের সমস্যা বেশি হয়। ফলে শীতল আবহাওয়ার দেশগুলোতে এর ভয়াবহ সংক্রমণ ঘটেছে। যুক্তরাষ্ট্রের ঠাণ্ডাপ্রবণ রাজ্যগুলোতে করোনার প্রার্দুভাব বেড়েছে। আবার প্রথমদিকে ইতালি, স্পেন, যুক্তরাজ্য ও যুক্তরাষ্ট্র করোনাভাইরাসের প্রাদুর্ভাব ও ভয়াবহতাকে খুব একটা আমলে নেয়নি। এখন দেশগুলোকে চড়া মূল্য দিতে হচ্ছে।

অন্যদিকে প্রাকৃতিকভাবে দক্ষিণ-পূর্ব এশিয়ার দেশগুলোতে আবহাওয়া এখন অনেকটাই উষ্ণ-উত্তপ্ত। দক্ষিণ-পূর্ব এশিয়ার প্রায় সবকটি দেশেই গরমের তীব্রতা দিন দিন বৃদ্ধি পাচ্ছে। তাছাড়া বিশ^ স্বাস্থ্য সংস্থা করোনাভাইরাসের প্রাদুর্ভাবকে মহামারী ঘোষণা দেয়ার পরপরই ভারত, থাইল্যান্ড, শ্রীলঙ্কা, ভুটান, বাংলাদেশ, নেপাল, পাকিস্তান, মালদ্বীপসহ দক্ষিণ-পূর্ব এশিয়ার দেশগুলো নিজেদের সামর্থ্য অনুযায়ী সামাজিক দূরত্ব বজায় রাখতে কঠোর পদক্ষেপ নেয়। এর মধ্যে চীনের উহান রাজ্যের ভয়াবহ পরিস্থিতি থেকে শিক্ষা নিয়ে শীতল আবহাওয়ার দেশ নেপাল ও ভুটান সরকার আগাম কঠোর সতর্কতামূলক পদক্ষেপ নেয়ায় দেশ দুটিতে করোনাভাইরাসের সংক্রমণ তেমন ঘটেনি। এর ফলে প্রাণহানি ও আক্রান্তের সংখ্যাও দক্ষিণ-পূর্ব এশিয়ার দেশগুলোতে কম।

বাংলাদেশের স্বাস্থ্যমন্ত্রী জাহিদ মালেক সোমাবর ঢাকায় মহামারী করোনাভাইরাস সম্পর্কে দেশের সর্বশেষ পরিস্থিতি নিয়ে প্রেস ব্রিফ করেছেন। তিনি বলেছেন, ‘আমাদের দেশ এখন ভালো আছে, নিরাপদে আছে। প্রধানমন্ত্রী আমাদের সঙ্গে নিয়মিত যোগাযোগ রেখেছেন। তিনি বিভিন্ন দিক-নির্দেশনা দিচ্ছেন।’

জাহিদ মালেক জানান, ‘করোনা মোকাবিলায় সরকার আগে থেকে প্রস্তুতি নিয়েছে বলে বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থা ও জাতিসংঘ বাংলাদেশের প্রশংসা করেছে।’ মন্ত্রী দেশের মানুষকে ভয় না পেয়ে সচেতন থাকার আহ্বান জানিয়েছেন।

ইউনাইটেড হাসপাতালের লাইসেন্স বাতিল চেয়ে রিট

নিজস্ব বার্তা পরিবেশক

image

রাজধানী গুলশানের ইউনাইটেড হাসপাতালের করোনা ইউনিটে অগ্নিকাণ্ডে ৫ রোগীর মৃত্যুর ঘটনায় হাসপাতালটির লাইসেন্স বাতিল চেয়ে

করোনা পরিস্থিতি : নিয়ম ও স্বাস্থ্যবিধি কেউ মানছে না

বাকী বিল্লাহ

image

করোনাভাইরাস প্রতিরোধে স্বাস্থ্য অধিদফতর থেকে নানা নিয়ম মেনে চলার জন্য নির্দেশ দেয়া হলেও কেউ তা মানছে না। যত্রতত্র নিয়ম ভঙ্গ করা

করোনায় আরও ২৬১ পুলিশ আক্রান্ত

নিজস্ব বার্তা পরিবেশক

প্রাণঘাতী মহামারী করোনা সংক্রমণে নতুন করে পুলিশের ২৬১ সদস্য আক্রান্ত হয়েছে। একদিনে এটি সর্বোচ্চ আক্রান্ত হওয়ার রেকর্ড পুলিশ

sangbad ad

বান্দরবনে বন্দুক যুদ্ধে ইয়াবা ব্যবসায়ী নিহত

নিজস্ব বার্তা পরিবেশক

image

বান্দরবনে বর্ডার গার্ড বাংলাদেশ (বিজিবি’র) সঙ্গে বন্দুকযুদ্ধে এক ব্যক্তি নিহত হয়েছে। ১ জুন সোমবার নাইক্ষংছড়ি এলাকায় এ বন্দুকযুদ্ধের

মে মাসে ২২ কোটি ৬৯ লক্ষাধিক টাকার চোরাচালান ও মাদকদ্রব্য জব্দ

নিজস্ব বার্তা পরিবেশক

image

বর্ডার গার্ড বাংলাদেশ (বিজিবি) গত মে মাসে দেশের সীমান্ত এলাকাসহ অন্য স্থানে অভিযান চালিয়ে ২২ কোটি ৬৯ লাখ ৬৮ হাজার

মির্জাপুরে ক্যাডেট কলেজসহ ১২ প্রতিষ্ঠানে শতভাগ পাস

প্রতিনিধি, মির্জাপুর (টাঙ্গাইল)

image

এবারের এসএসসি পরীক্ষায় টাঙ্গাইলের মির্জাপুর ক্যাডেট কলেজসহ উপজেলার

পানিতে তলিয়ে যাওয়া ধান কেটে কৃষকের বাড়ি পৌছে দিলো ছাত্রলীগ

প্রতিনিধি, মির্জাপুর (টাঙ্গাইল)

image

ঘুর্নিঝড় আম্পানের প্রভাবে অতিবৃষ্টিতে টাঙ্গাইলের মির্জাপুরের ফতেপুর ইউনিয়নের কয়েকটি গ্রামের ৫৫০ একর জমির ধান পানিতে

শিবালয়ে কাশাদহ প্রকল্পে ধান তলিয়ে : কৃষকের ঘুম হারাম

রফিকুল ইসলাম,শিবালয় (মানিকগঞ্জ)

শিবালয়ে কাশাদহ প্রজেক্টে হঠাৎ করে অসময়ে পানি প্রবেশ করায় নিচু জমির আধাপাকা ধান তলিয়ে গেছে এবং কিছু ধান তলিয়ে যাওয়ার উপক্রম হয়েছে। এতে এলাকার কৃষকদের ঘুম হারাম হয়ে গেছে। বোয়ালী গ্রামের কৃষক মো. আব্দুল

পটুয়াখালীতে আম্ফানে ক্ষতিগ্রস্ত ১৬ হাজার মিটার বেড়িবাঁধ

স্বপন ব্যানার্জী, পটুয়ায়াখালী

image

ঘূর্ণিঝড় আম্ফানের জলোচ্ছ্বাসে পটুয়াখালী জেলার ৮উপজেলার প্রায় ১৬ হাজর মিটার বেড়িবাঁধ ভেঙ্গে গেছে। প্লাবিত হয়েছে ৫ হাজার ৫৬৭ হেক্টর জমি। এতে ৪ হাজার ৩৮ মে. টন ফসলের ক্ষতি হয়েছে বলে জানিয়েছে জেলা কৃষি সম্প্রসারণ অধিদপ্তর। প্লাবনে সবচেয়ে ক্ষতি হয়েছে আউশ বীজতলা ও বিভিন্ন ধরনের রবি শষ্য এবং শাক-সবজির। এ দিকে

sangbad ad