• banlag
  • newspaper
  • epaper

ঢাকা , বুধবার, ১৭ জুলাই ২০১৯

 

আওয়ামী লীগ নেতার সংশ্লিষ্টতা থাকায় অসহায় মুক্তিযোদ্ধা পরিবার

নিউজ আপলোড : ঢাকা , বুধবার, ২৪ এপ্রিল ২০১৯

সংবাদ :
  • নিজস্ব বার্তা পরিবেশক

গাজীপুরে এক মুক্তিযোদ্ধার পরিবারের সম্পদ কেড়ে নেয়ার চেষ্টা করছে কতিপয় ভূমিদস্যুরা। জাল কাগজপত্র তৈরি করে ওই সম্পদ অন্যত্র বিক্রি করার চেষ্টা করছে তারা। এ অবস্থায় চরম অসহায় পরিস্থিতিতে পড়েছে মুক্তিযোদ্ধার পরিবারটি। এ ঘটনার নেপথ্যে গাজীপুর আওয়ামী লীগের এক প্রভাবশালী নেতার সংশ্লিষ্টতা থাকায় কোন মহলে গিয়ে বিচারও পাচ্ছে না পরিবারটি। এ অবস্থায় প্রধানমন্ত্রী ও স্বরাষ্ট্রমন্ত্রীসহ সংশ্লিষ্টদের কাছে সহযোগিতা চেয়েছেন তারা। ২৪ এপ্রিল বুধবার ঢাকা রিপোর্টার্স ইউনিটিতে নিজেদের অসহায়ত্বের কথা বলতে গিয়ে মুক্তিযোদ্ধার স্ত্রী কান্নায় ভেঙে পড়েন।

সংবাদ সম্মেলনে মুক্তিযোদ্ধা হারুন অর রশিদের স্ত্রী কানিজ ভুইয়া অভিযোগ করে জানান, তার স্বামী হারুন অর রশিদ দেশের জন্য যুদ্ধ করেছেন। হারুন অর রশিদ তার ৩ ভাই ও ৬ বোনের মধ্যে সবার বড় ছিলেন। ২০১৩ সালে তার স্বামী মারা যান। পারিবারিকভাবে তার স্বামী ৮ দশমিক ২৫ একর সম্পদের মালিক। এছাড়া তার স্বামী ৭২ শতংশ জমি কিনেছেন। পৃথক দাগের এ সম্পত্তি ভুয়া পাওয়ার অব অ্যাটর্নি তৈরি করে তার দেবর হাসানুর রশীদ ভুইয়া, জিলানুর রশীদ ভুইয়াসহ একটি সংঘবদ্ধ চক্র গ্রাস করার চেষ্টা করছে। জাল পাওয়ার অব অ্যাটর্নিতে কানিজের ননদ ইসমত ও তার স্বামী মো. মজিবুর রহমান গাজীপুর আওয়ামী লীগের সহ-সভাপতি কাজী আলিম উদ্দিনের সহযোগিতায় বিক্রি করার চেষ্টা করছেন। তার স্বামী ৭২ শতাংশ জমি ওয়ারিশ সম্পত্তি দেখিয়ে দখল নিয়ে ওই জমি অন্যত্র বিক্রি করার পাঁয়তারা করছেন। এ ঘটনায় গাজীপুর সদর থানায় একটি সাধারণ ডায়েরিও করেছেন তিনি।

সংবাদ সম্মেলনে মুক্তিযোদ্ধা হারুন অর রশিদের ছেলে আশিক রশিদ অভিযোগ করে জানান, তার চাচা ও ফুপুদের এসব জালিয়াতিতে সার্বিক সহযোগিতা করছেন গাজীপুর মহানগর আওয়ামী লীগের সহ-সভাপতি কাজী আলিম উদ্দিন। রাজনৈতিক প্রভাবে কাজী আলিম উদ্দিন তাদের পৈতৃক ও কেনা সম্পত্তি অ্যাডভোকেট রাজ্জাকের কাছে বিক্রির জন্য বায়না দলিলও করেছেন। আওয়ামী লীগ নেতা কাজী আলিম উদ্দিন ও তার ফুপা মজিবুর রহমান নেপথ্যে থেকে কলকাঠি নাড়ার কারণে তারা কোথাও গিয়ে বিচার পাচ্ছেন না।

সংবাদ সম্মেলনে উপস্থিত ছিলেন মুক্তিযোদ্ধা হারুন অর রশিদের বোন গুলনাহার বেগম জিন্নাত আরাসহ পরিবারের অন্য সদস্যরা।

নবীনগরে ড্রেজারে বালি উত্তোলন ঝুঁকিতে বেড়িবাঁধসহ কয়েক গ্রাম

প্রতিনিধি, নবীনগর (ব্রাহ্মণবাড়িয়া)

image

ব্রাহ্মণবাড়িয়ার নবীনগর উপজেলার শ্যামগ্রাম ইউনিয়নে লোড ড্রেজারের বালু উত্তোলনের ফলে বেড়িবাঁধসহ কয়েকটি গ্রাম মারাত্মক ঝুঁকিপূর্ণ

ফেঁসে যাচ্ছেন শিক্ষা মন্ত্রনালয়ের অসাধু কর্মকর্তারা এবং নিয়োগ ও ভর্তি বানিজ্যের সিন্ডিকেট

নিজস্ব বার্তা পরিবেশক

image

ভিকারুননিসা নূন স্কুল অ্যান্ড কলেজের অধ্যক্ষ নিয়োগসহ বিভিন্ন ইস্যুতে জারি করা বিতর্কিত আদেশে ফেঁসে যাচ্ছেন শিক্ষা মন্ত্রনালয়ের অসাধু কর্মকর্তারা। ওই

বধ্যভূমি থেকে শহীদদের নামফলক উধাও

প্রতিনিধি, ব্রাহ্মণবাড়িয়া

image

ব্রাহ্মণবাড়িয়ার সরাইল উপজেলার ধর্মতীর্থ এলাকার বধ্যভূমি থেকে শহীদদের নামফলক কে বা কারা নিয়ে গেছে। এ ঘটনায় স্থানীয় মুক্তিযোদ্ধাদের

sangbad ad

মানুষ মানুষের জন্য : আব্দুল্লাহর হৃৎপিণ্ডের ফুটো সারবে হাত বাড়ালে সবাই

প্রতিনিধি, মির্জাপুর (টাঙ্গাইল)

image

টাঙ্গাইলের মির্জাপুরে আড়াই বছরের শিশু আব্দুল্লাহকে বাঁচাতে সহযোগিতার

সাত গ্রামের ভরসা ভাঙা কাঠের পুল

গনেশ পাল, মোরেলগঞ্জ (বাগেরহাট)

image

বাগেরহাটের মোরেলগঞ্জে জিউধরা ইউনিয়নের কুরুপের ধাইড় ডেউয়াতলা পদ্মপুকুর পাড়ের খালের সংযোগের পারাপারের ভাঙ্গা কাঠের পুলটি

কিশোরগঞ্জে একাধিক সর. কার্যালয় জলাবদ্ধ

জেলা বার্তা পরিবেশক, কিশোরগঞ্জ

image

কিশোরগঞ্জ জেলা শহরের বিভিন্ন এলাকায় কয়েকদিনের বৃষ্টিতে ভয়াবহ জলাবদ্ধতার সৃষ্টি হয়েছে। পুরাতন কালেক্টরেট এলাকার কয়েকটি

ডিজিটাল বাংলাদেশের গ্রামীণ চিত্র : বাগেরহাটের সাইনবোর্ড-কচুয়া সড়ক চষাক্ষেত! ভোগান্তি

আজাদুল হক, বাগেরহাট

image

সড়ক ও জনপথ বিভাগের কর্তব্য কাজে উদাসীনতার কারণে বাগেরহাটের সাইনবোর্ড-কচুয়া উপজেলা সদরের আঞ্চলিক মহাসড়কটি

৬ ব্যাংক ও ২ আর্থিক প্রতিষ্ঠানে নিয়োগ সমন্বিত লিখিত পরীক্ষা বাতিল

অর্থনৈতিক বার্তা পরিবেশক

image

বাংলাদেশ ব্যাংকের তত্ত্বাবধায়নে ৬টি ব্যাংক ও ২টি আর্থিক প্রতিষ্ঠানে এক হাজার ২২৯ জন সিনিয়র অফিসার নিয়োগে অনুষ্ঠিত সমন্বিত

নভোথিয়েটারে মাসব্যাপী উন্মুক্ত আলোকচিত্র প্রদর্শনী

নিজস্ব বার্তা পরিবেশক

image

রাশিয়ার ফটোগ্রাফার দিবস উদযাপন উপলক্ষে রাজধানীর বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান নভোথিয়েটারে ‘মানুষ, প্রকৃতি, প্রযুক্তি’ শীর্ষক

sangbad ad